রবিবার, ১২ Jul ২০২০, ০৩:৫০ পূর্বাহ্ন

নোটিশঃ
বরিশাল থেকে প্রকাশিত অনলাইন নিউজ পোর্টা্ল "দৈনিক সময়ের খবর"বরিশাল বিভাগের সকল জেলা ও উপজেলা সহ মহানগরীর ৩০ ওয়ার্ড ও ৪ টি থানায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হইবে।আগ্রহী প্রার্থীরা ৭ দিনের মধো প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ যোগাযোগ করুন।
সংবাদ শিরোনাম :
একজন দেশপ্রেমিক স্বপ্নদ্রষ্টা যখন পথপ্রদর্শক। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বান্ধবী কে একাধিকবার ধর্ষণ! অতঃপর অন্তঃসত্ত্বা! বরিশাল কলেজের নাম পরিবর্তন নিয়ে নগরজুড়ে তোলপাড়! করোনা জয়ী পুলিশ যোদ্ধাদের সংবর্ধনা দিলেন পুলিশ কমিশনার শাহাবুদ্দিন খান। দীর্ঘ ১২ বছর অপেক্ষিত মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের নিয়োগ,প্রধানমন্ত্রীকে বিএএমটিপি’র কৃতজ্ঞতা ও শুভেচ্ছা। পুত্রসন্তানের জনক হলেন সার্জেন্ট শহিদুল ইসলাম। সংগীতশিল্পী এন্ড্রু কিশোর আর নেই। বরিশালে সড়কের উপর গেট নির্মানের পায়তারা, মেয়রের হস্তক্ষেপ কামনা। সাংবাদিকতার সুযোগ দিচ্ছে “বরিশাল সময়ের খবর” শুদ্ধাচার পুরস্কার পাচ্ছেন প্রফেসর মো. জিয়াউল হক।
জনপ্রিয়তার শীর্ষে ত্যাগী ছাএনেতা “গোলাম মোস্তফা অনীক”

জনপ্রিয়তার শীর্ষে ত্যাগী ছাএনেতা “গোলাম মোস্তফা অনীক”

শেখ সাইফুল ইসলাম সুজন // হাই্রবিডের এই যুগে পরগাছা শ্রেণীর নেতা কর্মীদের ভীড়ে প্রকৃত নেতা কর্মী পাওয়া যেখানে কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে সেখানে একজন অনিক সেরনিয়াবাত অবশ্যই ব্যতিক্রম।

★একনজরে জনপ্রিয়তার কারন…………………..

১। ছাত্রলীগের নেতা কর্মীদের সমস্যায় পাশে দাঁড়ান নিঃস্বার্থে
২। মানবিক কাজে নিয়োজিত সরব
৩। কট্টরপন্থী আওয়ামী পরিবারের সন্তান

৪। পরিশ্রমী এবং কর্মী প্রিয়
৫। সাধারন শিক্ষার্থীদের নিকট জনপ্রিয়
৬। ফ্রেশ ইমেজের অধিকারী
৭। আপোসহীন স্পস্টভাষী
৮। অন্ধভাবে শেখ হাসিনা ভক্ত

★একান্ত সাক্ষাত…………………………………………….

সবকিছু নিয়ে সামগ্রিকভাবে তার কাছে জানতে চাওয়া হলে এই ছাত্রনেতা জানান, ‘রাজনীতি করি একটি আদর্শের জায়গা থেকে। সেই আদর্শ থেকে যে শিক্ষাটা পেয়েছি সেটা হলো মানুষের জন্য কাজ করা। মানুষের পাশে দাঁড়ানো। মানুষের উপকারে নিজেকে নিয়োজিত করা। তাই যখনই সুযোগ আসে চেষ্টা করি ভালো কাজের সাথে নিজেকে যুক্ত রাখার। এরই ধারাবাহিকতায় বিগত বছরগুলো ওরকম কিছু কাজ করেছি। সকলের দোয়া থাকলে ইনশাআল্লাহ সামনের দিনগুলোতেও ভালোকাজ চালিয়ে যাবো।’

তিনি আরও যোগ করেন- ‘‘আমি পরম সৌভাগ্যবান, দক্ষিন বাংলার রাজনৈতিক অভিবাবক আবুল হাসনাত আব্দুল্লাহ্ অত্যন্ত স্নেহধন্য আমার বাবা জনাব রুস্তুম সেরনিয়াবাত এর কাছ থেকে সেই ছোটবেলায় বঙ্গবন্ধুর কথা, তার আপোষহীন নীতি, ব্যক্তিত্ব ও আদর্শের কথা শুনে, অনুপ্রাণিত হয়ে তা অন্তর গহীনে ধারণ করেই আমার ছাত্রলীগ এর রাজনীতির হাতেখড়ি। রাজনীতি করি মানুষের জন্য, তাদের সেবায়, তাদের কল্যাণে। বিনিময়ে কেবল চাই সবার অন্ত:প্রাণ দোয়া, আর অকৃত্রিম ভালোবাসা, যা আমার অনাগত আগামীর পথ চলের পাথেয়।

★বর্তমান ও অতীত বরিশাল ছাএলীগের কথা …………………………

শিক্ষা-শান্তি-প্রগতির ধারাবাহিকতায় এগিয়ে যাচ্ছে বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাএলীগ।নানা আলোচনা-সমালোচনায় থাকলেও এই ঐতিহাসিক এই সংগঠনটি দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলছে।তারই পরিপ্রেক্ষিতে,বরিশাল মহানগর ছাএলীগ একটি গুরুত্বপূর্ণ ইউনিট। বর্তমানে সকল জল্পনা_কল্পনার অবসান ঘটিয়ে বির্তকমুক্ত করা হয় কেন্দ্রীয় ছাএলীগ কে।বর্তমানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই ছাএলীগ এর নেতৃত্বের ব্যাপারে খুব অনড়।তাই তার নির্দেশ মোতাবেক নতুন দুই মুখ কে দেওয়া হয় ছাএলীগের সাংগঠনিক ক্ষমতার ভার।এতে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পায় বরিশালের কৃতি সন্তান আল নাহিয়ান খান জয় ও সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পায় লেখক ভট্রচার্য।কিন্ত তাদের এই নবগঠিত কমিটিকে একটু আলাদাভাবে দেখছে বরিশাবাসী।বর্তমানে ১ যুগ পেরিয়ে গেলেও মহানগর ছাএলীগের কমিটির ব্যপারে মাথা ব্যাথা ছিলনা কেন্দ্রীয় ছাএলীগের।তাই বরিশালবাসী তাদের এলাকার সন্তান, বর্তমান কেন্দ্রীয় ছাএলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়ের কাছে এই ত্যাগ,স্রম,দুঃখের অবসান চায়।হয়তবা,এই কারনেই বরিশালবাসী আলাদাভাবে দেখছে নবগঠিত কমিটিকে।জানা যায়,২০১১ সালে বরিশাল মহানগর ছাএলীগের ৩ সদস্য কমিটি দেওয়া হয়।উক্ত কমিটিতে,জসীম_অসীম ও রাহাতকে সভাপতি,সম্পাদক ও সাংগঠনিক দিয়ে কমিটির অনুমোদন চুড়ান্ত করে।প্রথমদিক দিয়া মহানগর ছাএলীগের সাংগঠনিক দক্ষতা গতিশীল হলেও, পরে কচ্ছপ মত ধীর গতি দেয়। একপর্যায় বরিশাল সাবেক মেয়র শওকত হেসেন হিরন এর মৃত্যুর পর কমিটির অসতীত্ব খুজে পাওয়া দুস্কর ছিল।ফলে দীর্ঘদিন হিমশিম খেতে হচ্ছে মহানগর ছাএলীগকে।তদ্রুপ তখনকার দক্ষিন বাংলার রাজনৈতিক অভিভাবক হাসানাত পুএ কেন্দ্রীয় যুবলীগ সদস্য সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর হস্তক্ষেপে,চাংগা দিতে শুরু করে বরিশাল ছাএলীগ।সেই সময় ছাএলীগের দুর্দিনে রাজপথে দেখা জায় গুটি কয়েক ছাএনেতাদের।তখন মহানগর ছাএলীগের মধো সবার শীর্ষে দেখা যেত, ক্লিন ইমেজের ছাএনেতা গোলাম মোস্তফা অনিক কে।ছাএলীগে এবং আওয়ামীলীগ এর সকল জাতীয় প্রগামে তার ভুমিকা ছিল চোখে পড়ার মত। জানা যায়,বিএনপি ক্ষমতায় থাকা কালীন সময়ে দলের দুর্দিনে হাল ছাড়েনি এই তুখোড় ছাএনেতা অনিক।বিভিন্ন হরতাল,পিকেটিং মধো দিয়া কর্মসুচী পালন করতেন।কলেজ জীবন থেকেই রাজনিতীর সাথে নিযুক্ত হন এই ছাএনেতা।তার বাবা রুস্তম সেরনিয়াবাত আগৈলঝাড়া আওয়ামীলীগ এর রাজিনীতির সাথে সক্রিয় আছেন

★জনপ্রিয় হওয়ার কারন সম্পর্কে সাক্ষাত……………………………

বর্তমানে বরিশাল আওয়ামীলীগ এর এক প্রবিন নেতাদের মুখে,শোনা জায়,অনীক খুবই ক্লিন ইমেজ একজন নেতা। সে আআর ও জানান,আমাদের বর্তমানে বরিশাল ছাএলীগের নেতাকর্মীদের মাঝে কমবেশি ঝামেলা শুনে থাকি,কিন্ত, অনীক এর নামে এ রকম কোন অপ্রিতীকর কোন অভিযোগ শুনিনাই। দলের দুর্দিনে আমি অনিক কে দেখেছি এবং বর্তমানে ও দেখতাছি।ত্যাগী ছাএনেতাদের মধো অনীক কে গন্য করা জায়। অন্যদিকে জানা যায়,বরিশাল মহানগর ছাএলীগ এর গুরুত্বপূর্ণ পদে অনীক কে রাখা হলে মহানগর ছাএলীগ সুসংগতিত রুপ নিবে। এ ছাড়া সাবেক ছাএনেতাদের মুখে অনীক এর প্রশংসা কথা শোনা গেছে।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সাবেক একছাএ নেতা জানান,বর্তমানে ছাএ রাজনিতি নিয়া যে কোন্দল চলতাছে, তাতে আমার মনে হয়,পরিচ্ছন্ন ও মেধাবী ছাএনেতাদের কে দায়িত্ব দেওয়াটা উচিত।সে আর ও জানায়,বরিশাল মহানগর ছাএলীগে আমি সকল কে খারাপ বলবনা,সবাই দলের জন্য ত্যাগ দিয়েছেন,মিছিল,মিটিং সহ যাবতীয় সকল কিছুতে অংশগ্রহন করেছেন,তারমধো জনপ্রিয় উচ্চতায় অনীক কে দেখেছি।আমি মনে করি যে দলের জন্য যে যোগ্য তাকেই গুরুত্বপূর্ণ পদে ভুষিত করা হোক।এছাড়া বরিশালবাসীর একটাই প্রত্যাশা,যে যোগ্য তাকে বরিশাল মহানগর ছাএলীগ দায়িত্বর ভার দিয়ে কমিটি শিঘ্রই করা হোক।যেহেতু বরিশালের সন্তান বাংলাদেশ ছাএলীগের একজন সভাপতি, তাই প্রত্যশাটা একটু আলাদাভাবে রাখতে চায়।

শেয়ার করুন




© dailysomoyerkhobor। সর্বসত্ব সংরক্ষিত।