শনিবার, ১১ Jul ২০২০, ০১:৫৯ পূর্বাহ্ন

নোটিশঃ
বরিশাল থেকে প্রকাশিত অনলাইন নিউজ পোর্টা্ল "দৈনিক সময়ের খবর"বরিশাল বিভাগের সকল জেলা ও উপজেলা সহ মহানগরীর ৩০ ওয়ার্ড ও ৪ টি থানায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হইবে।আগ্রহী প্রার্থীরা ৭ দিনের মধো প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ যোগাযোগ করুন।
সংবাদ শিরোনাম :
করোনা জয়ী পুলিশ যোদ্ধাদের সংবর্ধনা দিলেন পুলিশ কমিশনার শাহাবুদ্দিন খান। দীর্ঘ ১২ বছর অপেক্ষিত মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের নিয়োগ,প্রধানমন্ত্রীকে বিএএমটিপি’র কৃতজ্ঞতা ও শুভেচ্ছা। পুত্রসন্তানের জনক হলেন সার্জেন্ট শহিদুল ইসলাম। সংগীতশিল্পী এন্ড্রু কিশোর আর নেই। বরিশালে সড়কের উপর গেট নির্মানের পায়তারা, মেয়রের হস্তক্ষেপ কামনা। সাংবাদিকতার সুযোগ দিচ্ছে “বরিশাল সময়ের খবর” শুদ্ধাচার পুরস্কার পাচ্ছেন প্রফেসর মো. জিয়াউল হক। মহাদুর্যোগে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের পুলিশ হিসেবে নিজেদের তুলে ধরেছি: বিএমপি কমিশনার। যে অভ্যাসগুলো পরিবর্তন করে করোনা মুক্ত থাকবেন। বরিশালে বেড়েছে অনলাইন পন্যের কদর, একধাপ এগিয়ে Twins Butterfly শপ।
বরিশালে ও ঢাকায় দুই ভাইয়ের সততার চমক।

বরিশালে ও ঢাকায় দুই ভাইয়ের সততার চমক।

 আসাদুজ্জামান::  জনসেবা. উন্নয়ন ও দুর্নীতি অনিয়মের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সততার অগ্র পথিক হিসাবে চমক দেখিয়েছেন বরিশালে জনন্দিত সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ ও ঢাকা দক্ষিন সিটি মেয়র শেখ ফজলে নুর তাপস।

বরিশালে মেয়র হিসাবে দায়িত্ব গ্রহনের পরে বিসিসির সকল অনিয়ম দুর্নীতি মুক্ত করতে দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা কর্মচারীদের ওএসডি করা সহ সকল ঘুষ বানিজ্য ও অনিয়ম দুর করেন মেয়র সাদিক । গোটা নগরবাসী তার সুফল ভোগ করতেছে। পাশা পাশি উন্নয়ন কাজ তরান্বিত করা ও জনদুর্ভোগ কমানো এবং সর্বোচ্চ নাগরিক সেবা নিশ্চিত করে চলেছেন তিনি । এখন আর দপ্তরে ঘুষের জন্য ফাইল আটকে থাকেনা। নগরবাসী বিসিসিতে গেলে সেখানকার কর্মকর্তা কর্মচারীরা মানুষকে সম্মান দিয়ে কথা বলে। আগে নগরবাসীকে মক্কেল মনে করতো আর এখন বিসিসির কেউকে খুশি করতে চাইলে এক বাক্যে বিসিসির স্টাফরা বলেন কিছু লাগবে না. আগে চাকরিটা বাচাঁন।

অর্থাৎ চাকরি হারানোর ভয়ে কেউ অনিয়ম করার সাহস পাচ্ছে না। নগরীতে এখন আর প্রভাবসালীদের অনিয়মের দাপট চলেনা। তবে কিছু বড় মেয়ারা বেজার হলেও বরিশালের শতকারা ৯০ ভাগ মানুষ মেয়র সাদিক আবদুল্লার এমন পদক্ষেপকে সমর্থন করে প্রসংসা করছেন ।

এছারাও সপ্তাহে দু দিন নাগরিকরা তাদের সুখ দুখের কথা মেয়রের নিকট বলতে পারেন।। এতে নতুন দৃস্টান্ত স্থাপন করেছেন মেয়র সাদিক। সড়ক সংস্কারে এখন কোন ঠিকাদার অনিয়ম করার সাহস পায় না। বর্তমানে মহামারি করোনা মোকাবেলায় নগরীতে এপর্যন্ত প্রায় ৬৮ হাজার কর্মহীন পরিবারের ঘরে খাদ্য সহায়তা পৌছে দিয়ে প্রধামন্ত্রী নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করে চলেছেন।।

অপর দিকে মেয়র সাদিক আবদুল্লার মত সততা নিয়েই কাজ শুরু করেছেন তার ফুফাতো ভাই ঢাকা দক্ষিন সিটির নব নির্বাচিত মেয়র শেখ ফজলে নুর তাপস। সপথ নিয়েই মেয়র তাপস প্রথমে দুই দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাকে চাকরিচ্যুত করেছেন । আশা করি সেখানেও থাকবেনা কোন অনিয়ম। মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ ও মেয়র তাপসের মত সব জনপ্রতিনিধিরা সততা নিয়ে কাজ করলে বাংলাদেশে গুটি কয়েক দুর্নীতিবাজরা অনিয়ম করার সাহস পেতোনা। সরকার ও দলের দুর্নাম হতোনা।

শেয়ার করুন




© dailysomoyerkhobor। সর্বসত্ব সংরক্ষিত।